॥ জান্নাতুল ফেরদৌস ॥ ইভটিজিং   | ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | সময়ঃ ২:৫৮ অপরাহ্ণ
100

বর্তমান সমাজে ইভটিজিং একটি ভয়াবহ সামাজিক সমস্যা। এর বিষাক্ত ছোবলে আক্রান্ত আমাদের সমাজ। প্রতিদিনের খবরের কাগজ খুললেই ইভটিজিং এর কারণে বর্বরতা, নিমর্ম প্রাণহানী ও আতœহননের খবর চোখে পড়ে। ইভাটিজিং এর কারণে প্রতিদিনই কোন না কোন নারী হ”েছ নিহত অথবা বেছে নি”েছ আতœহত্যার পথ। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কর্তৃক প্রকাশিত এক পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে, মাত্র দশ মাসে তিনশ তরুণীর আতœহত্যার কারণ ইভটিজিং (সূত্র: প্রথম আলো, ২ ডিসেম্বর ২০১৭)। এই একটি পরিসংখ্যান কি সভ্য জাতি হিসেবে আমাদের পরিচয়ের উপর একটি বড় প্রশ্নবোধক চিহ্ন আকারে যথেষ্ট নয়?
বর্তমানে ইভটিজিং একটি বহুল আলোচিত শব্দ। বাইবেলের ভাষা অনুযায়ী ইভ (ঊাব) প”থিবীর আদিমাতা, আমরা মুসলমানরা বলি ‘হাওয়া’। ইভ’ শব্দটি নারীর রূপক হিসেবে ব্যবহৃত। টিজিং (ঞবধংরহম) দ্বারা উত্যক্ত বা জ্বালাতন করার কাজকে বুঝায়। কোনো নারীকে উত্যক্ত করা অর্থে ঊাব ঞবধংরহম শব্দটি ব্যবহৃত হয়। ২০০৯ সালের ১১ মে হাইকোর্ট ইভটিজিং এর নামে যৌন হয়রানি রোধের লক্ষে কতকগুলো সুনির্দিষ্ট নির্দেশ দেয়ার ফলে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের একটি আইনি ভিত্তি তৈরি হয়েছে। যে কোন অবাঞ্ছিত – যে কোন ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য বা রসিকতা, গায়ে হাত দেয়া বা দেয়ার চেষ্টা করা, ই-মেইল এসএমএস- বা টেলিফোন বিড়ম্বনা, পর্নোগ্রাফি বা অনুরূপ কোন চিত্র, অশ্লীল ছবি, দেয়ালে লিখন, মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে সম্পর্ক ¯’াপনের দাবি বা অনুরোধ ইত্যাদি ইভটিজিং এর আওতায় পড়ে।
মেয়েদের উত্যক্ত করা তথা ইভটিজিং আমাদের সমাজে একটা বহু পুরাতন সামাজিক ব্যাধি। বাংলাদেশের নারীর জীবন হাজারো সমস্যায় পীড়িত। এরই মাঝে শুরু হয়েছে বিড়ম্বনার আরেক উপদ্রব ইভটিজিং। সভ্য সমাজের সু¯’তা পরিমাপ করার সবচেয়ে বড় নিয়ামক হ”েছ একটি মেয়ে সমাজে কতটা সম্মান ও নিরাপত্তার সাথে বস বাস করছে তার উপর। সংবিধানে নারীর সম্মান জনক অব¯’ানের কথা উল্লেখ থাকলেও পুরুষতান্ত্রিক দ”ষ্টিভঙ্গি, নারীর জন্য ভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক প্রথা তৈরী করে দিয়েছে আমাদের দেশ। নারীর বৈষম্য থেকেই আজকের অসম্মানজনক উত্যক্তকরণ বা ইভটিজিং এর সূত্রপাত বলে মনে করা হ”েছ।
ইভটিজিং এর ফলে আতœহত্যার ঘটনা বেড়েছে পরিবারে, সমাজে নিরাপত্তাহীনতা ও উৎকন্ঠা বাড়ছে। ২০০১ সালে নারায়ণগঞ্জের চারুকলা ইনস্টিটিউটের মেধাবী ছাত্রী নিমি বানু আত্মহত্যার আগে চিরকুটে ৫ জন বখাটের নামসহ লিখেছিলেন- ওদের অপমান একজন মেয়েকে রাস্তায় ফেলে রেপ করার চেয়েও নির্মম। ইভটিজিং এর শিকার হয়ে তৃষা, পিংকি, ইলোরা, সাম্প্রতিক সময়ে মুন্সীগঞ্জের সিনথিয়া আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছে। হাঙ্গার প্রজেক্টের এক তথ্যে বলা হয়েছে ইভটিজিং এর কারণে অনেক মেয়ে অকালে শিক্ষাঙ্গন ত্যাগ করছে, এতে বাল্য বিয়ের প্রবণতা বাড়ছে। বিশেষ করে ইভটিজিং এর কারণে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়-য়া অনেক মেয়েকেও অভিভাবকরা বিবাহ দিতে বাধ্য হ”েছ।
ইভটিজিং একটি সামাজিক ও মানসিক সমস্যা। এর নানা কারণ রয়েছে। তন্মধ্যে উ”ছৃড়খল ও বখাটে ছেলেদের বিকৃত মানসিকতা এবং নৈতিক চরিত্রের অবনতি, মূল্যবোধের অভাব, আইনশ”ড়খলা পরি¯ি’তি অবনতি ইত্যাদি।
ইভটিজিং প্রতিরোধকে একটি সামাজিক আন্দোলনে পরিণত করার জন্য অভিভাবক, রাজনৈতিক  দলের নেতৃব”ন্দ, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি,সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণী- পেশার মানুষদের নিয়ে প্রতিরোধ কমিটি গঠন করতে হবে।
পত্র পত্রিকায় ইভটিজিং নিয়ে ব্যাপক লেখালেখির ফলে প্রশাসন থেকে স্কুল-কলেজের আশেপাশে সাদা পোশাকে পুলিশ মোতায়েনের ঘোষণা আসে। শিক্ষামন্ত্রী সংসদে দাঁড়িয় বলেন ইভটিজিং বন্ধে বিশেষ ধরণের ব্যব¯’ার কথা। কিš’ কোন কিছুতেই কার্যকর ফল হ”েছ বলে মনে হয় না। ইভটিজিং দিন দিন ব”দ্ধি পা”েছ। বেপরোয় হয়ে উঠেছে উত্যক্তকারীরা। এভাবে চলতে থাকলে সমাজ বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়বে। কেবল সরকার বা প্রশাসন এটা ঠেকাতে পারবে বলে মনে হয় না।
ইভটিজিং একটি মারাত্মক সামাজিক সমস্যা। তাই ইভটিজিং প্রতিরোধে প্রয়োজন রাষ্ট্রীয় উদ্যোগের পাশাপাশি সাধারণ জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত প্রতিরোধ। ইভটিজিং প্রতিরোধ । ইভটিজিং প্রতিরোধে নাগরিক সমাজ, বিশেষ করে যুব সমাজকে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে। যুগে যুগে যৌবন দূত তরুণের দলই জরাগ্রস্ত প”থিবীর বুকে এনেছে নবজীবনের ঢল। তিমির রাত্রির অবসানে রক্ত রাঙ্গা প্রভাতের বন্দনা করেছে তরুণরা। তরুণের কন্ঠেই গীত হয় নতুন দিনের গান। যৌববের উদ্দীপনা সাহসিকতা, দুর্বার গতি, নতুন জীবন রচনার স্বপ্ন এবং কল্যাণব্রত। পথভ্রষ্ট যুবকরা আলোর পথে ফিরে আসুক, সমাজ থেকে ইভটিজিং এর কালো ছায়া মুছে যাক । ইভটিজিং মুক্ত সমাজে সকল নারী নিরাপদে থাকুক, তারুণ্য শক্তির জয় হোক, এটিই আমাদের প্রত্যাশা।
লেখকঃ- জান্নাতুল ফেরদৌস, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সদর ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

এখানে আপনার মন্তব্য করতে পারেন

টি মন্তব্য

পড়া হয়েছে 12 বার

এই বিভাগের আরও খবর

    আর্কাইভ

    প্রজাবন্ধু ফেসবুক ফ্যান পেজ